মানুষ, সব কিছুর মানদন্ড যে : দ্বিতীয় পর্ব

জীবনের বিজ্ঞান

কেনেথ ক্লার্ক এর ‘সিভিলাইজেশন’ এর চতুর্থ অধ্যায় ম্যান দি মেজার অফ অল থিংস এর অনুবাদ প্রচেষ্টা..

(আসমা সুলতানা ও কাজী মাহবুব হাসান)

মানুষ, সব কিছুর মানদন্ড যে : প্রথম পর্ব
মানুষ, সব কিছুর মানদন্ড যে : দ্বিতীয় পর্ব

বতিচেল্লী, সেইন্ট অগাস্টিন

ফ্লোরেন্সে পঞ্চদশ শতাব্দীর প্রথম ত্রিশ বছর ছিল জ্ঞানার্জণের জন্য একটি বীরোচিত পর্ব, যখন নতুন নতুন গ্রন্থের সন্ধান মিলেছে এবং সম্পাদিত হয়েছিল বহু প্রাচীন গ্রন্থ, যখন বিদ্বানরা ছিলেন শিক্ষক, শাসক আর নৈতিকতার পথপ্রদর্শক। রেনেসাঁ পর্বে অসংখ্য চিত্র আছে যেখানে বিদ্বানরা তাদের অধ্যয়নের নিমগ্ন, সাধারণত বেশীর ভাগ ক্ষেত্রেই যার প্রতিনিধিত্ব করতো খ্রিস্টীয় চার্চের অন্যতম পিতাদের কোন একজন, জেরোম (১)  অথবা অগাস্টিন (২)। তাদের দেখে মনে হয় তাঁরা বেশ স্বাচ্ছন্দে বসে আসছেন আসবাবপত্রে সুসজ্জিত অধ্যয়ন কক্ষে, যেখানে তাকের উপর জড়ো হয়ে আছে তাদের বই, সেগুলোর পাঠ্যাংশ উন্মুক্ত হয়ে আছে তাদের সামনে। মহাবিশ্ব সম্বন্ধে তাদের গভীর ধ্যানে সহায়তা করছে স্বর্গীয় গোলক। বতিচেল্লীর (৩) সেইন্ট অগাষ্টিন এ যে তীব্র আবেগময় ব্যগ্রতা আমরা দেখি…

View original post 1,651 more words

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s