মানুষ, সব কিছুর মানদন্ড যে ..

Originally posted on জীবনের বিজ্ঞান :

কেনেথ ক্লার্ক এর ‘সিভিলাইজেশন’ এর চতুর্থ অধ্যায় ম্যান দি মেজার অফ অল থিংস এর অনুবাদ প্রচেষ্টা..
(আসমা সুলতানা ও কাজী মাহবুব হাসান)


উরবিনো’র ডুক্যাল প্যালেসের কোর্টইয়ার্ড

যে মানুষগুলো ফ্লোরেন্সকে (১)  ইউরোপের সবচেয়ে ধনী শহরে রুপান্তরিত করেছিল, ব্যাঙ্ক-ব্যবসায়ী পুঁজিরক্ষকরা, পশমি পশমি সুতোর ব্যবসায়ীরা, ধার্মিক বাস্তববাদীরা বাস করতেন আত্মরক্ষামূলক,নির্মম অবন্ধুভাবাপন্ন ঘরে, যেগুলো যথেষ্ট পরিমান শক্তিশালী ছিল সংঘাতময় দলগুলো মধ্যে দ্বন্দ এবং দাঙ্গায় সম্ভাব্য ক্ষতি থেকে নিজের অবস্থান টিকিয়ে রাখার জন্য। কিন্তু কোনভাবেই সেই নির্মানগুলো সভ্যতার ইতিহাসের সবচেয়ে অসাধারন পর্বটির আগমনের কোন পূর্বাভাষ দেয়নি, আমাদের কাছে যা পরিচিত রেনেসাঁ নামে। আপাতদৃষ্টিতে কোন কারণই নেই, কেন হঠাৎ করেই এই অন্ধকার সংকীর্ণ রাস্তা থেকেই উদ্ভুত হয়েছে এইসব আলোকময় রৌদ্রকরোজ্জল গোলাকৃতির খিলান সহ আর্কেড বা বাজার, ঋজু কার্ণিশের নীচে, আনন্দে উদ্বেলিত হয়ে তারা যেন কোথাও ছুটে চলছে। তাদের ছন্দময়তা আর সুসমতায়, তাদের উন্মুুক্ত এবং উষ্ণ অভ্যর্থনাময় অনুভুতির সৃষ্টি করা মত চরিত্রটি সম্পুর্ণভাবে স্ববিরোধী বিষন্ন কৃষ্ণ গথিক শিল্পশৈলী যা এর আগে প্রাধান্য বিস্তার করে ছিলএবং এখনও কিছুটা…

View original 1,052 more words

Beautiful Losers: পৃথিবীর সব উপেক্ষিত শিল্পীর প্রতি আমার শ্রদ্ধা….

Originally posted on জীবনের বিজ্ঞান :

Poetry is just the evidence of life. If your life is burning well, poetry is just the ash. Leonard Cohen

He knew that hair couldn’t feel; he kissed her hair. (Leonard Cohen, The Favorite Game) (Drawing: Ink on paper, Kazi Mahboob Hassan,2011)

আমার নি;শ্বাস তোমার
শরীরের ভাজে পড়বে বলে
আগুন জ্বেলেছি তিতীর্ষ ার জলে
দেখেছি সব সাগর শামুক
পালিয়ে বাঁচে, মহুয়া এক অন্ধকারে..

কি অদ্ভুত ! তুমিও কাদছো
আমিও ভাসি চোখের জলে
সময় অসময়
কুন্ডলী পাকানো শামুকের দলে
মিলে সব, নোনা জলে –
জ্বলে থাকে শুধু একটি তারা, আকাশের তলে

তোমার শরীরে  আমার
তপ্ত শ্বাস পড়বে বলে
বাসর সাজিয়েছি তৃষ্ণা ফুলে
কার কি এসে যায় তাতে?

রোজ আমি ভাসি চোখের জলে
তপ্ত শ্বাসেই আমার সাজা …

কি অদ্ভুত ! তোমার চোখ কেন ভেজা ?

( কবিতা:  আসমা সুলতানা, আগষ্ট ১৬, ২০০৯)

View original

I Want to Die Before You:

Originally posted on জীবনের বিজ্ঞান :

(নাজিম হিকমতের একটি কবিতার আংশিক অনুবাদ প্রচেষ্ঠা:
আর নীচের ড্রইং গুলো আমার সংগ্রহে থাকা শিল্পী আসমা সুলতানা মিতার আকা চারটি ড্রইং)

তোমার আগেই আমি মরতে চাই।
তোমার কি মনে হয়,
যে পরে আসে সে কি যে আগে যায় তাকে খুজে পায়?
আমার তা মনে হয় না।

আমার শবদেহ বরং তুমি পুড়িয়ে ফেলো,
তারপর তোমার ঘরের চুলোর উপরে একটা পাত্রে আমাকে তুলে রেখো
পাত্রটি হবে কাচের স্ফটিক স্বচ্ছ সাদা কাচের..
যেন তুমি এর ভিতরে আমাকে দেখতে পারো..

তুমি আমার বিসর্জনকে দেখবে.
.মাটির অংশ হওয়া থেকে আমি নিজেকে বঞ্চিত করেছি..
একটি ফুল হবার সুযোগ থেকে বঞ্চিত করেছি নিজেকে..

তোমার সাথে থাকতে পারি যেন..সেজন্য
আর আমি পরিণত হচ্ছি ধুলোয়..
তোমার সাথে থাকার জন্য..

পরে যখন তোমাকেও ছোবে মৃত্যু,
আমার এই কাচের পাত্রেই তুমি আসবে।
সেখানেই আমরা দুজনে একসাথে থাকবো…
তোমার দেহভস্ম আমার দেহভস্মের মাঝে..
যতদিন না কোন এক অমনোযোগী বধু
বা…

View original 178 more words